কুলাউড়া বিদ্যুৎ বিভাগের প্রকৌশলীর সাথে ব্যবসায়ী সমিতির বৈঠক

কুলাউড়া

ঘন ঘন বিদ্যুৎ বিভ্রাটে ক্ষুব্ধ কুলাউড়া উপজেলার কয়েক হাজার গ্রাহক।সামান্য বাতাস কিংবা বৃষ্টি এতেই চলে যায়। বিদ্যুৎ শুধু তাই নয় ভৌতিক বিদ্যুৎ বিল নিয়ে হয়রানির শিকার কুলাউড়ার পিডিবি’র বিদ্যুৎ গ্রাহকেরা। মিটার রিডিংয়ের চেয়ে অনেক বেশি বিল করা হচ্ছে শতশত গ্রাহকের নামে। গ্রাহকদের অভিযোগ, মিটার রিডিং না দেখেই কয়েকগুণ বেশি বিল করা হচ্ছে। তবে পিডিবির কর্মকর্তারা বলছেন, বাড়তি বিল পরবর্তী বিলের সাথে ক্রমান্বয়ে সমন্বয় করে দেয়া হয়ে থাকে। কিন্তু প্রাথমিক অবস্থায় এসব ভৌতিক বিল দিতে গিয়ে দিশেহারা গ্রাহকরা। সাম্প্রতিক সময়ে ঘন ঘন বিদ্যুৎ বিভ্রাটে অতিষ্ঠ কুলাউড়াবাসী। এতে করে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে কুলাউড়ার জনসাধারনকে। এসব সমস্যার সমাধান নিয়ে বিদ্যুৎ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলীর সাথে বৈঠক করেন কুলাউড়া ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির একটি প্রতিনিধি দল।

বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) দুপুর ১২টায় ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সভাপতি বদরুজ্জামান সজল ও সাধারণ সম্পাদক এম. আতিকুর রহমান আখই’র নেতৃত্বে ৮ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল কুলাউড়া বিদ্যুৎ অফিসে গিয়ে ঘন্টা ব্যাপী কথা বলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে। প্রতিনিধি দল বিদ্যুৎ এর অব্যবস্থাপনায় ক্ষোভ প্রকাশ করে সমস্যার দ্রুত সমাধান চান।
কুলাউড়া বিদ্যুৎ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী ওসমান গণী জানান, প্রয়োজনীয় লোকবল না থাকায় ইচ্ছা থাকা সত্বেও প্রর্যাপ্ত সেবা প্রদান করা সম্ভব হয়না। অতিরিক্ত বিল প্রদান সহ অন্যান্য সমস্যার দ্রুত সমাধানের আশ্বাস দেন।
বৈঠকে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, কুলাউড়া ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সিনিয়র সহ সভাপতি হাজী রফিক মিয়া ফাতু, সিনিয়র সহ-সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম জায়েদ, কোষাধ্যক্ষ হাফিজ মোঃ বদরুল ইসলাম, দপ্তর সম্পাদক মোঃ কুতুবউদ্দিন, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এইচ ডি রুবেল ও ক্রীড়া সম্পাদক সাইফুর রহমান আফজলসহ আরো অনেকে।

বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের সাথে আলাপ কালে কুলাউড়া ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক এম. আতিকুর রহমান আখই বলেন, আমাদের কয়েকটি দাবীর প্রেক্ষিতে কিছুদাবী দ্রুত সমাধান করার আশ্বাস দেন। তবে শিগ্রই স্থায়ী সকল সমস্যার সমাধান চেয়ে আমরা একটি স্মারকলিপি বিদ্যুৎ বিভাগের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বরাবরে প্রেরণ করবো এবং কুলাউড়াবাসীকে সাথে নিয়ে এই সমস্যার সমাধান না হলে সর্বস্তরের জনসাধারণকে নিয়ে কঠোর আন্দোলন গড়ে তুলা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *