কুলাউড়া টিলাগাঁওয়ে জোরপূর্বক প্রতিপক্ষের গাছ কাটার অভিযোগ

কুলাউড়া

বিশেষ প্রতিনিধি : কুলাউড়া উপজেলার টিলাগাঁও ইউনিয়নে পূর্ব বিরোধের জেরে এক বিধবা মহিলার জমি থেকে গাছ কর্তনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী মহিলা নাছিমা বেগম বাদী হয়ে গাছ কাটার সাথে জড়িত ৪ জনকে অভিযুক্ত করে কুলাউড়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। থানায় লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার টিলাগাঁও ইউনিয়নের লংলা খাস এলাকার বাসিন্দা নাছিমা বেগমের সাথে একই এলাকার বাসিন্দা বশির মিয়ার সাথে জায়গা সম্পত্তি নিয়ে দীর্ঘদিন থেকে বিরোধ চলে আসছে। টিলাগাঁও ইউনিয়নের লংলা টি.ই মৌজার খতিয়ান নং-১০০৬, জে. এল নং-৭৭, দাগ নং- ১০২৩, ৭১ শতক ভূমি রেজিস্টারি দলিলমূলে মালিক হয়ে দীর্ঘদিন থেকে ভোগ দখল করে আসছেন নাছিমা বেগম। এই ভূমি নিয়ে বশির মিয়ার বিরুদ্ধে মৌলভীবাজার আদালতে উচ্ছেদের জন্য সিআর মামলা নং-৭৬/২০২১ (স্বত্ব) দায়ের করেন। বর্তমানে মামলাটি চলমান রয়েছে। ঘটনার দিন ২১ ডিসেম্বর মঙ্গলবার সকাল আনুমানিক ৮টায় বশির মিয়ার নেতৃত্বে তাঁর ছেলে জামাল উদ্দিন (২৭), আশরাফ উদ্দিন (৪৫) ও আরজান মিয়ার ছেলে রাজিদ মিয়া (৩০) জোরপূর্বক নাছিমা বেগমের দখলীয় ভূমি থেকে ৭টি আকাশমনি সহ বিভিন্ন প্রজাতির গাছ কাটেন। এসময় বাঁধা দিলে প্রতিপক্ষরা নাছিমা বেগমকে বিভিন্ন ভয়ভীতি ও হুমকি প্রদান করে। খবর পেয়ে কুলাউড়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে গাছ কাটার সত্যতা পায় এবং স্থানীয় একটি ছ’মিল থেকে কর্তনকৃত গাছগুলো জব্দ করে। বশির মিয়ার ছেলে আশরাফ উদ্দিন বলেন, এই ভূমিটি নাছিমা বেগমের বাবা হুসন আলী আমার বাবার কাছে বিক্রি করেছেন। এখন আবার তিনি এই ভূমির মালিকানা দাবি করছেন। তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই এনামুল হক বলেন, সরেজমিন গিয়ে গাছ কাটার সত্যতা পেয়েছি। তবে ভূমির দখল নিয়ে উভয়পক্ষের বিরোধ দীর্ঘদিনের। বিষয়টি সমাধানের জন্য ইউনিয়নের চেয়ারম্যান-মেম্বাররা দায়িত্ব নিয়েছেন। এ ব্যাপারে কুলাউড়া থানার অফিসার্স ইনর্চাজ বিনয় ভূষণ রায় বলেন, এ ঘটনায় নাছিমা বেগম ৪জনকে অভিযুক্ত করে একটি অভিযোগ দিয়েছেন। তদন্ত শেষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *