কুলাউড়ায় দেড়শো পরিবারকে রমযানের খাদ্য সহায়তা

কুলাউড়া

মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় স্থানীয় একটি ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে দেড়শো অসহায় পরিবারকে রমযানের খাদ্য সহায়তা দেওয়া হয়েছে। পৌর শহরসহ কুলাউড়া বিভিন্ন এলাকার দেড়শোটি পরিবারকে স্থানীয় শাহ্ সৈয়দ রাশীদ আলী ফাউণ্ডেশনের তত্ত্ব্র এই খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

ফাউণ্ডেশনের উপদেষ্টা মোক্তাদির হোসেন জানান, প্রবাসীদের সংগঠন মৌলভীবাজার ডিস্ট্রিক্ট এসোসিয়েশন অব নর্থ আমেরিকা ইনকের উদ্যোগে ও শাহ্ সৈয়দ রাশীদ আলী ফাউণ্ডেশনের সার্বিক তত্বাবধানে এই খাদ্য সামগ্রী উপজেলার দেড়শো পরিবারের মধ্যে বিতরণ করা হয়েছে। করোনার লকডাউনের প্রভাবে রমজানে বিভিন্ন শ্রমজীবি মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়েন। এতে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন শ্রমজীবি মানুষেরা। সেসব মানুষ থেকে দেড়শ পরিবারকে ফাউণ্ডেশনের মাধ্যমে বাছাই করা হয়। মঙ্গলবার থেকে বৃহস্পতিবার বিকেল পর্যন্ত এই খাদ্য সামগ্রী ওই সকল পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে।

ফাউণ্ডেশনের পক্ষ থেকে আমরা গৃহহীন মানুষকে ঘর নির্মাণ, বেকার মানুষকে স্বনির্ভর করতে এবং দরিদ্র অসুস্থ মানুষকে চিকিৎসা সহায়তা দিয়ে আসছি।

সহযোগিতা করার পাশাপাশি বিভিন্ন দুর্যোগে ত্রাণ ও আর্থিক সহায়তা ফাউণ্ডেশনের কার্যক্রম অব্যাহত আছে। খাদ্য সহায়তা পর্যায়ক্রমে বিতরণ কার্যক্রমে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ফজলুল হক খান সাহেদ, কুলাউড়া ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সভাপতি বদরুজ্জামান সজল,মৌলভীবাজার জেলা পরিষদের নারী সদস্য শিরীন আক্তার চৌধুরী মুন্নি,পৌরসভার সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর তাসলিমা সুলতানা মনি ,নিউ নেশন প্রতিনিধি মছব্বির আলী, প্রিয় বাংলার সম্পাদক নাজমুল বারী সোহেল, রাশিদ আলী ফাউন্ডেশনের সদস্য পারুল মিয়া ও হাসিনা আক্তার ডলি, আলী আমজদ উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সৈয়দ মোহাম্মদ আলী, লংলা রাশিদিয়া শমসেরিয়া হাফিজিয়া মাদ্রাসার শিক্ষক হাফিজ আব্দুর নুর ও হাফিজ আব্দুল মতিন, শ্রমিক নেতা শফিকুর রহমান, সংবাদকর্মী রুবেল বক্স পাবেল, লাল সবুজ উন্নয়ন সংঘ, মৌলভীবাজার শাখার সভাপতি আজহার মুনিম শাফিনসহ ফাউণ্ডেশনের সদস্যবৃন্দ।

খাদ্য সামগ্রীর প্রতিটি প্যাকেটে ৩ কেজি চাল,৩ কেজি আলু, ২ কেজি পেয়াজ, ১ কেজি লবন, ১ লিটার সয়াবিন তেল, ১কেজি ছোলা, ১ কেজি বুটের ডাল, ১ কেজি মসুরি ডাল, আধা কেজি রসুন দেওয়া হয়

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *